27 September 2010

মুখ খুললেন প্রভা - নিজেকে নির্দোষ দাবী

অবশেষে মুখ খুললেন মডেল সাদিয়া জাহান প্রভা। তিনি নিজেকে নির্দোষ দাবী করে দোষারোপ করলেন তার পুরনো প্রেমিক রাজীবকে। মডেল ও অভিনেত্রী প্রভা বলেন, জীবিত একজন অভিনেত্রীকে মেরে ফেলা হয়েছে। যার কোনো অপরাধই নেই অথচ সমাজের কাছে তাকে হেয় করা হলো। গত ১৯ আগস্ট মডেল ও অভিনেতা জিয়াউল হক ফারুক অপূর্বকে হঠাৎ করে পালিয়ে বিয়ে করেন প্রভা। এরপরই তার বাগদত্তা প্রেমিক রাজীব হাসান প্রতিশোধ পরায়ণ হয়ে তাদের দুজনের (রাজীব-প্রভা) যৌন সিডি (নীল ছবি) বাজারে ছেড়ে দেন। মিডিয়াতে তুলকালাম কান্ড ঘটে যায় প্রভা-রাজীবের আপত্তিকর যৌন সম্পর্কের ভিডিও দেখে। তাদের ঐ ভিডিও ছবি দেখে কারো অনুমান করতে বাকী নেই যে, রাজীব-প্রভা স্বেচ্ছায় স্বপ্রণোদিত হয়েই দৃশ্যগুলো ধারণ করেছেন। প্রভা বছর পাঁচেক আগে মেরিল সাবানের বিজ্ঞাপনের মডেল হয়ে টেলিভিশনের পর্দায় আত্মপ্রকাশ করেন। পরবর্তীতে আরো অনেক পণ্যের বিজ্ঞাপনের মডেল এবং বিভিন্ন নাটকে অভিনয় করে দর্শকপ্রিয়তা লাভ করেন। বর্তমানে এটিএন বাংলায় প্রচারিত ধারাবাহিক 'পথ জানা নেই' নাটকে স্বামী অপূর্বর সাথে অভিনয় করছেন।

প্রভা-রাজীবের নীল ছবি প্রকাশ হওয়ার পর গত দু সপ্তাহ আত্মগোপনে ছিলেন প্রভা। আত্মহত্যা করেছেন এমন গুজবও বাজারে চাউর হয়। অবশেষে মিডিয়াতে মুখ খুললেন প্রভা। একটি অনলাইন নিউজকে দেয়া সাাৎকারে প্রভা বলেন, রাজীবের সঙ্গে গত দু বছর ধরেই তার সম্পর্ক খারাপ যাচ্ছিল। ও খুব ক্রেজি একজন মানুষ। ও কখনোই আমাকে ভালোবাসেনি।

রাজীবের টার্গেট ছিল যে কোনো মূল্যে আমাকে বিয়ে করা। এজন্য অনেকটা চাপের মুখেই আমার সঙ্গে ওর বাগদান হয়। এর পরেই আমার কাছে ওর উদ্দেশ্য খোলাসা হয়ে যায়। তাছাড়া রাজীব যা করছে, তাতে আমার মনে হয় ওর সঙ্গে আমার বিয়ে হলে আমাকে সে মেরেও ফেলতে পারতো। প্রভা আরো বলেন, রাজীবের সঙ্গে আমার বাগদান হওয়ার পর যখন বুঝলাম সে আমাকে ভালোবাসে না, তখন আমি কাজের মধ্যে ডুবে থাকার চেষ্টা করলাম। এরপর এমনও হয়েছে, টানা ত্রিশ দিনই আমি কাজ করেছি, যাতে ওর সাথে আমার কোনোভাবেই দেখা না হয়।

ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে প্রভা বলেন, আমি অন্য সব বাঙালী নারীর মতো স্বামী-সংসার নিয়ে ভাল থাকতে চেয়েছি। এটাই কী আমার অপরাধ? স্বামী ও সহকর্মী জিয়াউল হক ফারুক অপূর্ব সম্পর্কে প্রভা বলেন, অপূর্ব মানুষ হিসেবে খুবই ভাল। তিনি বলেন, আগে থেকেই ও আমার প্রতি যত্নবান ছিল। তা ছাড়া যেমন সহকর্মী হিসেবে একসঙ্গে কাজ করেছি, তেমনি ভাল বন্ধুত্বের সম্পর্কও ছিল আমাদের মধ্যে।

অপূর্বের সঙ্গে সম্পর্কের শুরু বিষয়ে প্রভা বলেন, তাদের মধ্যে ভাল বোঝাপড়া থাকলেও শুরুতে সম্পর্কের বিষয়টা দুজনের কাছেই ধোঁয়াটে ছিল। তবে, প্রভা জানান, অর্পূবকে আমার ভাল লাগত। হঠাৎ করে অপূর্বের সঙ্গে বিয়ের প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, আমার পরিবার থেকেও বিয়ের জন্য চাপ আসছিল। প্রবাসী এক ছেলের সঙ্গেও পরিবার থেকে বিয়ের জন্য চাপ দেয়া হয়। সবকিছু মিলিয়ে আমি অনেক চাপের মধ্যে ছিলাম। হাঁপিয়ে উঠেছিলাম আমি।

তবে প্রভা তার স্বেচ্ছায় ভিডিও করা রাজীবের সঙ্গে নীল ছবি প্রসঙ্গে কোন কথা প্রকাশ করেননি।

1 comment: